শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩
৭ আশ্বিন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সেই বিদ্যালয়ের আরও ২২ শিক্ষার্থী হাসপাতালে

অনলাইন ডেস্ক | আপডেট: বুধবার, জুন ৭, ২০২৩

সেই বিদ্যালয়ের আরও ২২ শিক্ষার্থী হাসপাতালে
কুমিল্লার দাউদকান্দিতে বিদ্যালয়ে অসুস্থ হয়ে এক শিক্ষার্থী মারা যাওয়ার পরদিন একই বিদ্যালয়ের আরও ২২ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছে। বুধবার (৭ মে) দুপুরে উপজেলার গৌরীপুর সুবল আফতাব উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। অসুস্থ শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছেন বিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং স্থানীয়রা। 

সুবল আফতাব উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সেলিম আহমেদ ঢাকা পোস্টকে বলেন, আজ শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা ছিল। পরীক্ষা শুরুর কিছুক্ষণ পর বিভিন্ন শ্রেণিকক্ষে অসুস্থ হয়ে পড়ে শিক্ষার্থীরা। বিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং স্থানীয়দের সহযোগিতায় অসুস্থ হয়ে পড়া ২২ শিক্ষার্থীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়। তারা বর্তমানে সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহিনুল ইসলাম ঢাকা পোস্টকে বলেন, শিক্ষার্থীদের অসুস্থ হয়ে পড়ার খবর পেয়ে দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সুমনসহ আমরা দ্রুত হাসপাতালে ছুটে যাই। অসুস্থ শিক্ষার্থীরা সবাই হাসপাতালে আছে। চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেছি, সবাই মোটামুটি শঙ্কামুক্ত। তারা ঠিক কী কারণে অসুস্থ হয়ে পড়ল এটা নির্ণয়ের চেষ্টা চলছে। গতকালও এই বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ঢাকা নিয়ে যাওয়ার পথে সে মারা যায়। 

দাউদকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. তৌহিদ আল হাসান ঢাকা পোস্টকে বলেন, মোট ২২ জন শিক্ষার্থী আমাদের এখানে ট্রিটমেন্টের জন্য আসে। তাদের মধ্যে বেশিরভাগই অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। প্রথমে অষ্টম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী গরম এবং পরীক্ষা ভীতির কারণে অসুস্থ হয়ে পড়ে। তার দেখাদেখি বাকিদের প্যানিক অ্যাটাক হয়। প্যানিক অ্যাটাকের কারণে বাকিরা অসুস্থ হয়ে পড়ে। ২২ শিক্ষার্থীর মধ্যে দুইজন বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি আছে, তাদের অবস্থা শঙ্কামুক্ত। বাকি ২০ জনকে মেন্টাল সাপোর্ট এবং প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে ২২ শিক্ষার্থী অসুস্থ হওয়ার পর সুবল আফতাব উচ্চ বিদ্যালয়ের আগামীকালের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। 

প্রসঙ্গত, গতকাল মঙ্গলবার একই বিদ্যালয়ে ক্লাস চলাকালে অসুস্থ হয়ে উম্মে হাবিবা আক্তার (১২) নামে এক ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ে। বার বার বমি করা শুরু করলে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকায় পাঠান। ঢাকা নেওয়ার পথেই মৃত্যু হয় হাবিবার। 
0 Comments